টপ নিউজ বাণিজ্য / অর্থনীতি বাংলাদেশ

‘বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নযোগ্য নয়’ -খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম

গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) গবেষক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বলেছেন, ‘বাজেটে সরকারের দেওয়া লক্ষ্যমাত্রা যে বাস্তবসম্মত নয়, তা সরকারের ভেতর থেকেই বলা হচ্ছে। জাতীয় রাজস্ববোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান নিজেই সরকারের কাছে এই বিষয়ে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) জাতীয় সংসদে উপস্থাপন হওয়া বাজেটের ওপর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক কারণে উচ্চাভিলাসী এই বাজেট দেওয়া হলেও অর্থনৈতিক বাস্তবতায় লক্ষ্যমাত্রাগুলো নির্ধারণ করাযুক্তিযুক্ত হয়নি। বাজেটের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হবে না। রাজস্বের লক্ষ্যমাত্রাও পূরণ হবে না। আবার জিডিপি প্রবৃদ্ধিরলক্ষ্যমাত্রাও পূরণ হবে না।

বাজেটের বাস্তবসম্মতা পুনর্বিবেচনার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘বাস্তবায়নযোগ্য বাজেট উপস্থাপন হলে ভালোহতো। কারণ, অবাস্তবায়নযোগ্য বাজেট দেওয়াতে একদিকে অর্থের অভাবে অনেক প্রকল্পের কাজ শেষ হয় না।অপরদিকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ খাতে বরাদ্দ দেওয়ার সুযোগই থাকে না। এই কারণে এই বাজেটের বাস্তব সম্মতলক্ষ্যমাত্রা পুনর্বিবেচনা করা জরুরি।

প্রসঙ্গত, ২০২০২১ অর্থবছরের পাঁচ লাখ ৬৮ হাজার ৯০ কোটি টাকা টাকার প্রস্তাবিত বাজেট জাতীয় সংসদেউত্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল। প্রস্তাবিত এই বাজেটে এনবিআর এনবিআরবহির্ভূত খাতমিলিয়ে মোট রাজস্ব আদায় করার কথা তিন লাখ ৭৮ হাজার ৯০ কোটি টাকা। এর মধ্যে আগামী অর্থবছরেএনবিআরকে তিন লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য দেওয়া হয়েছে। সবচেয়ে বেশি রাজস্ব আদায়করতে হবে ভ্যাটে। এই খাতে এক লাখ ২৮ হাজার ৮৭৩ কোটি টাকা আদায় করার লক্ষ্য দেওয়া হয়েছে। ছাড়াআয়কর থেকে আসবে এক লাখ পাঁচ হাজার ৪৭৫ কোটি টাকা এবং শুল্কখাত থেকে আসবে ৯৫ হাজার ৬৫২ কোটিটাকা। তিন খাতের কোনও খাতই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে পারবে না বলে আশঙ্কা করেন তিনি।

Advertisements

ব্যাংকের ওপর নির্ভরশীল না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘কাঙ্খিত রাজস্ব আদায় না হলে সরকার বাধ্য হয়েইব্যাংকের ওপর বেশি নির্ভর হয়ে পড়বে। সেক্ষেত্রে সরকার ঘোষিত প্যাকেজ বাস্তবায়ন কিছুটা বাধাগ্রস্ত হবে। কারণ, ব্যাংকিং খাতের অবস্থা এমনিতেই ভালো না। এই পরিস্থিতিতে ব্যাংকের কাছে পর্যাপ্ত টাকাও নেই। কিন্তু সরকারযদি ব্যাংকের ওপর নির্ভর করতে শুরু করে তাহলে বেসরকারিখাতের উদ্যোক্তারা চাহিদা অনুযায়ী ঋণ পাবে না।তাই ব্যয়ের খাত কমিয়ে আনার জন্য সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছি।

তিনি জানান, দুর্নীতি অপচয় বন্ধ করতে পারলে তবেই লক্ষ্য অর্জনের কাছাকাছি যাওয়া সম্ভব। এই বছর বাজেটপ্রণয়নে বিভিন্ন খাতের বিষয়ে অর্থনীতিবিদ স্টেকহোল্ডারদের পরামর্শ নিলেও সামগ্রিক বাজেটের আকার নিয়েসরকার অর্থনীতিবিদদের পরামর্শ নিচ্ছেন না। বাজেটটি এখন প্রস্তাব আকারে এসেছে। এটি এখন আলোচনাহবে। সবার সঙ্গে আলোচনা করে এবং স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টি মাথায় রেখে রাজস্ব কাঠামো তৈরি করা জরুরি।

Drop your comments:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Pin It on Pinterest