ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ৪ উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি

এই লেখাটি 468 বার পঠিত

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে চার উপজেলায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন। একটি অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হকের আগমন ঠেকাতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলো রোববার বিজয়নগরে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয়। এর পাল্টায় মন্ত্রীর সমর্থকরা যে কোনো মূল্যে ওই অনুষ্ঠান করার ঘোষণায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে প্রশাসন রোববার সকাল ৬টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ওসি মো. নবীর হোসেন জানিয়েছেন, বিজয়নগর, সদর, আশুগঞ্জ ও সরাইল উপজেলায় সব ধরনের সভা, সমাবেশ ও জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “মন্ত্রী ছায়েদুল হকের অনুষ্ঠান নিয়ে উত্তেজনা চলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে গতকাল মধ্যরাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা নিজ নিজ এলাকায় ১৪৪ ধারা জারির ঘোষণা দেন।”

রোববার দুপুরে বিজয়নগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ হাসপাতাল উদ্বোধন ও সুধী সমাবেশে যোগ দেওয়ার কথা মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ছায়েদুল হকের।

ওই অনুষ্ঠানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ (সদর ও বিজয়নগর) আসনের সংসদ সদস্য আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীকে আমন্ত্রণ না জানানোয় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে মন্ত্রীর অনুষ্ঠান বর্জনের ঘোষণা দেন বিজয়নগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান তানভীর ভূঁইয়া ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া।

এরপর শুক্রবার দুপুরে বিজয়নগর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাকে মারধর ও কার্যালয় ভাঙচুর করা হয় এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর নামফলকও ভেঙে ফেলা হয়।

সাংসদ উবায়দুল মোকতাদিরের অনুসারী হিসেবে পরিচিত উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জহিরুল ইসলাম মন্ত্রীর আগমন ঠেকানেরা ঘোষণা দেন। এই পরিস্থিতিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কায় শনিবার সন্ধ্যায় বিজয়নগরে বিজিবি মোতায়েন করা হয় এবং পরে ১৪৪ ধারা জারি করে স্থানীয় প্রশাসন।

বিশেষ প্রতিবেদন



Contact us

E-mail: news@banglaexpress.ae(For News)
advt@banglaexpress.ae(For Ad)

Carrier

Text to Speech is becoming more and more wide spread in applications, mobile or not. This technology allows interaction of the application with the user on a much more personal level.

Join us

Copyright © Bangla Express 2015
Design & Development By: